বান্ধবীর বাবার সঙ্গে প্রেম করিনি, বন্ধুর মেয়ের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয়েছিল : শাওন

 

ঢালিউডের আলোচিত ছবি ‘ডুব’ এর সঙ্গে নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের নামটি বারবার জড়িয়েছে। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পরও এমন বিতর্ক থামেনি।

ছবিটি হুমায়ূন আহমেদের জীবনী কিংবা জীবনী নয়- এ দুই ভাগে ভাগ হয়ে গেছে দর্শক।

ছবিটি লেখকের জীবনী নির্ভর এমন আশঙ্কা থেকে সেন্সর বোর্ডে একটি চিঠি দিয়েছিলেন লেখকের স্ত্রী অভিনেত্রী, পরিচালক ও গায়িকা মেহের আফরোজ শাওন। হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে তার সম্পর্ককে নেতিবাচকভাবে দেখানো হতে পারে- এমন শঙ্কাও ছিল তার।

এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনও করেন তিনি। সেসময় লেখকের মেয়ে শীলা আহমেদের সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয়ে স্পষ্ট ব্যাখ্যা দেন তিনি। জানান, শীলা আহমেদ কখনই তার সহপাঠী ছিলেন না। সম্প্রতি শীলা আহমেদের সঙ্গে নিজের সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হন শাওন। এ প্রসঙ্গে টিভি অনুষ্ঠান ‘সেন্স অব হিউমার’র উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়ের এক প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি আমার বান্ধবীর বাবার সঙ্গে প্রেম করিনি বরং আমার বন্ধুর মেয়ের সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব হয়েছিল। হুমায়ূন আহমেদের কন্যা শীলা আহমেদ আমার বন্ধুর মেয়ে।

সেন্সর বোর্ডের বাধা পেরিয়ে ‘ডুব’ ছবির মুক্তি পাওয়ার বিষয়ে অনুষ্ঠানে শাওন বলেন, আমি যেই আশঙ্কাগুলো করছিলাম, অনেকবার ব্যাখা করেছি, আশঙ্কার কথা জানিয়ে আমি চিঠি দিয়েছি সেন্সর বোর্ডে। পাঁচটি জায়গায় তারা দৃশ্য কর্তন করেছেন।

Facebooktwittergoogle_pluslinkedinrssyoutubeinstagramflickr

জনপ্রিয় সঙ্গীত তারকা জেমস আগের মতো নিয়মিত নতুন গান না

জনপ্রিয় সঙ্গীত তারকা জেমস আগের মতো নিয়মিত নতুন গান না করলেও দেশ-বিদেশের মঞ্চে থাকছেন নিয়মিতই।   তারই ধারাবাহিকতায় এবার অস্ট্রেলিয়ায় যাচ্ছেন জেমস।

জানা যায়, অস্ট্রেলিয়ার দুই শহরে তিনটি কনসার্টে গান গাইবেন রকতারকা জেমস।

এ ব্যাপারে জেমসের ব্যক্তিগত সহকারি জানান, অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে আগামী ১ নভেম্বর দেশ ছাড়ছেন জেমস ও তার দল।  ৪ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ নাইট ২০১৭’ কনসার্টে গাইবেন জেমস।  পরদিন ৫ নভেম্বর ব্রিসবেনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের গান শোনাবেন তিনি।  তৃতীয় কনসার্টের জন্য জেমসকে অপেক্ষা করতে হবে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত।  এটি হবে মেলবোর্নে।  কনসার্ট শেষে ১৩ নভেম্বর জেমস দেশে ফিরবেন বলে জানা যায়।

Facebooktwittergoogle_pluslinkedinrssyoutubeinstagramflickr

মাশরাফিও সেদিন কেঁদেছিলেন

দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে সেরার পদক জেতার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলাদেশের মেয়ে মাবিয়া আক্তার সীমান্ত। তাকে দেখে চোখের পানি ফেলেননি কিংবা মুহূর্তের জন্যও আবেগতাড়িত হননি এমন বাংলাদেশি খুঁজে পাওয়া যাবে না।

বিশ্বনন্দিত ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা জানিয়েছেন, মাবিয়াকে দেখে সেদিন তিনিও কেঁদেছিলেন।

মাবিয়া আখতারের সঙ্গে সোমবার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন মাশরাফি। তিনি বলেন, এখনও স্পষ্ট মনে আছে। তখন আমরা চট্টগ্রামে ক্যাম্পে যাচ্ছি। ফেসবুক অন করে দেখি আপনি (মাবিয়া) কাঁদছেন। প্রথমে বুঝতে পারিনি। পুরোটা জানার পর… গাড়ির গ্লাসগুলো বন্ধ ছিল। অন্ধকার। মনের অজান্তে আমিও কাঁদছিলাম।

ওয়ানডে অধিনায়ক বলেন, এমন না যে আমি শুধু ক্রিকেট দেখি আমি কিন্তু আপনাদের খেলাও দেখি এবং মনে প্রাণে চাই আপনারা জেতেন। আমিও আপনাদের ফলো করি অন্যান্য খেলাও ফলো করি। হকি খেলা (এশিয়া কাপ) হলো, সাউথ আফ্রিকায় ছিলাম। যদিও ওভাবে দেখা হয়নি তবে রেজাল্ট ফলো করেছি। আমি মনে-প্রাণে চাই আপনারা ভালো করেন।

Facebooktwittergoogle_pluslinkedinrssyoutubeinstagramflickr
1 2 3 4 5